৮৫ মিনিট আগের আপডেট; দিন ২:২১; বৃহস্পতিবার ; ২১ জানুয়ারী ২০২১

মাত্র ৫ রান দিয়ে মোস্তাফিজের ৪ উইকেট!

খেলা ডেস্ক ২৮ নভেম্বর ২০২০, ১৬:২০

গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের বোলাদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে বড় সংগ্রহ করতে পারেনি তারকাখচিত দল জেমকন খুলনা। আগের দুই ম্যাচের মতো এবারও ব্যর্থ হলো জেমকনের টপঅর্ডার ব্যাটিং লাইনআপ। নাহিদুল-মোস্তাফিজের দুর্দান্ত বোলিংয়ে দলগত সেঞ্চুরিও করতে পারেনি মাহমুদউল্লাহ বাহিনী। 

শনিবার বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের তৃতীয় দিনের প্রথম ম্যাচে টস জিতে খুলনাকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম। নাহিদুল ইসলাম ও তাইজুল ইসলামের ঘূর্ণিবলের সঙ্গে মোস্তাফিজের অসাধারণ কাটিংয়ে ৮৬ রানেই গুটিয়ে গেছে খুলনার ইনিংস।

আজকের ম্যাচে নিয়মিত ওপেনার ইমরুল কায়েসকে তিনে পাঠিয়ে নিজেই ওপেনিংয়ে নামেন সাকিব।  কিন্তু তাতে কোনো কাজ হয়নি।  গত দুই ম্যাচের মতো আজকেও ইনিংস বড় করতে পারেননি সাকিব।

শুরুতেই ভুল বোঝাবুঝিতে রানআউট হন ৬ বলে ৬ রান করা বিজয়। ৭ বলে মাত্র ৩ রান করে সাজঘরে ফেরেন সাকিবও। নাহিদুল ইসলামের বোলিংয়ে মিড অন ও লং অনের মাঝামাঝি জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকা মোসাদ্দেক সৈকতের ক্যাচে পরিণত হন সাকিব। 

সাকিবের পর পরই মাত্র ১ রান করে প্যাভিলিয়নের পথ ধরেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও।  মাত্র ২ টেকেন তিনি।  তাকে লেগবিফোরের ফাঁদে ফেলেন নাহিদুল।  

দলের হাল ধরার চেষ্টা করে তিনে নামা ইমরুল কায়েস।  ২৬ বলে ২১ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। অন্যদিকে তাকে সঙ্গ দেয়া জহুরুল অমি ১৪ বলে ১৪ রান করে আউট হন।  

আজ আরিফুল হকও বেশি দূর যেতে পারেননি।  একপ্রান্ত আগলে রেখে ৩০ বল টিকে থাকলেও রান করেছেন মাত্র ১৫ ।  

ইনিংসের ১৮তম ওভারে নবম ব্যাটসম্যান হিসেবে মোস্তাফিজের তৃতীয় শিকারে পরিণত হন আরিফুল।  এরপর বোলার আলআমিনকেও দ্রুতই ফিরিয়ে দেন মোস্তাফিজ।

১৭.৫ ওভারে ৮৬ রান করতেই থেমে যায় জেমকন খুলনার ইনিংস। চট্টগ্রামের পক্ষে বল হাতে ৪ ওভারে মাত্র ১৫ রান খরচায় ২ উইকেট নেন নাহিদুল। 

তাইজুলও ২টি উইকেট পেয়েছেন।  তবে সবাইকে ছাড়িয়ে গেছেন কাটার মাস্টার মোস্তাফিজ।  ৩.৪ ওভার বল করে মাত্র ৫ রান দিয়ে নিয়েছেন ৪ উইকেট। ৮৭ রানের মামুলি টার্গেটে নেমে দুর্দান্ত শুরু করেছে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম।

যেই উইকেটে খুলনার ব্যাটসম্যানরা হাত খুলে মারতেই পারেনি, সেই উইকেটেই রানের বন্যা বইয়ে দিচ্ছেন চট্টগ্রামের ওপেনার লিটন দাস ও সৌম্য সরকার।

আল আমিন, শামীম ও হাসান মাহমুদদের তুলোধুনো করে ৩২ রানে ৪০ রান সংগ্রহ করেছেন লিটন দাস। অন্যদিকে কিছুটা মন্থর গতিতে ২৬ বলে ২৬ রান সংগ্রহ করেছেন সৌম্য।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ৯ ওভার শেষে গাজী গ্রুপ চট্টগ্রামের সংগ্রহ বিনা উইকেটে ৬৭ রান।  জয় পেতে চট্টগ্রামের ৬১ বলে ২০ রানের প্রয়োজন।  হাতে আছে সবকটি উইকেট।


সর্বমোট পাঠক সংখ্যা : ৭১