৯৮৬ মিনিট আগের আপডেট; রাত ১:৪৬; শুক্রবার ; ০২ ফেব্রুয়ারি ২০২৩

আর্জেন্টিনাকে জেগে ওঠতে হবে আজ

আমার কক্সবাজার ডেস্ক ২৬ নভেম্বর ২০২২, ১৫:৪১

আর্জেন্টিনার সমর্থকদের হাহাকার যেন পৃথিবী জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে। আর্জেন্টাইন ফুটবল প্রেমিকদের মিলনমেলা এখন কাতারের রাজধানী দোহা।

কিন্তু সৌদিদের হাতে অপ্রত্যাশিত হারের পর যেন শোকের মাতম চলছে। এখন আলোচনার অন্যতম বিষয় হচ্ছে কিভাবে জেগে উঠা যায়।

সৌদি আরবের কাছে হারের পর কান পাতলেই যেন শোনা যায় ম্যারাডোনা সমর্থকদের আহাজারি । সৌদি আরবের ধাক্কায় নেতিয়ে পড়া আর্জেন্টাইন ফুটবলকে জাগিয়ে তোলার উপলক্ষ হিসেবে ছুটে গেছেন সাবেক ফুটবল তারকারা।

ম্যারাডোনার মৃত্যুবার্ষিকীর পরের দিন মেক্সিকোর বিপক্ষে ম্যাচটিকে ঘিরে এক ঐতিহাসিক বাতাবরণও হয়েছে চারদিকে। এই ম্যাচ পারে খাদের কিনারা থেকে আর্জেন্টিনাকে টেনে তুলতে। এই ম্যাচ পারে প্রয়াত ম্যারাডোনার শোক ভোলাতে। পারে লিওনেল মেসির শেষ বিশ্বকাপকে নতুনভাবে রাঙাতে। 

মেক্সিকো এমনিতে খুব বড় প্রতিপক্ষ নয় আর্জেন্টিনার। কিন্তু সময় এই ম্যাচটিকে আর্জেন্টিনার ভূত-ভবিষ্যতের সঙ্গে জড়িয়ে দিয়েছে। সৌদি আরবের কাছে প্রথম ম্যাচ হারে তারা পড়েছে মহাবিপাকে। তাই মেক্সিকোর সঙ্গে মুখোমুখি হওয়ার আগে আর্জেন্টিনার কোচ লিওনেল স্কালোনিও জয়ের বিকল্প কিছু ভাবতে পারছেন না, ‘আমরা মেক্সিকো ম্যাচ নিয়ে ভাবছি। এটা সম্পূর্ণ আলাদা ম্যাচ, যদিও আমাদের খেলার ধরনে কোনো পরিবর্তন আসবে না। আমরা একইভাবে এই ম্যাচটা খেলতে নামছি, যেখানে জয় ছাড়া অন্য কিছু ভাবার সুযোগ নেই আমাদের।’

গ্রুপে বাকি আছে দুটি ম্যাচ। শেষ ১৬-তে পৌঁছতে হলে আলবেসেলেস্তেদের জিততে হবে দুটিই। সেদিক থেকে লুসাইল স্টেডিয়ামে আজ মেক্সিকোর বিপক্ষে ‘সেমিফাইনাল’ খেলতে নামছে আর্জেন্টিনা।  সেমিফাইনাল বলে কথা। দলের অনেক কিছু বদলেই তারা নামছে। একাদশে কিছু বদল হবেই, সঙ্গে তাদের লড়াকু মেজাজেও আসতে হবে পরিবর্তন। একাদশে পরিবর্তনগুলোর নামোল্লেখ না করে আর্জেন্টাইন কোচ বলেছেন, ‘হারটি (সৌদি আরবের বিপক্ষে) অবশ্যই বড় ধাক্কা দিয়েছে। মেক্সিকোর ম্যাচের কথা ভেবেই আমরা দলে পরিবর্তন আনব, তবে খেলার স্টাইলে কোনো পরিবর্তন আসবে না। অবশ্য খেলায় কিছু বৈচিত্র্য যোগ হতে পারে, সেটা চূড়ান্ত  হবে শেষ ট্রেনিং সেশনে।’

এদিকে মেক্সিকোর গোলরক্ষক গুয়েলার্মো ওচোয়া হুমকি দিয়ে রেখেছেন। আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ শেষ করে দিতে প্রস্তুত তারা। তাতা মার্তিনোর দলটি প্রতিপক্ষকে চাপে রাখবে, এ নিয়ে কোনো সন্দেহ নেই। স্কালোনিও তাই মেক্সিকোর আক্রমণভাগকে সমীহ করছেন, ‘মেক্সিকো ভালো দল। ভালো কোচের অধীনে দলটি খুব আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলে। এ জন্য আমাদের খেলার স্টাইলে কোনো পরিবর্তন আসবে না। আমরা আমাদের মতোই খেলব, ম্যাচ জেতার জন্য খেলব।’

সৌদি আরবের কাছে হারের পর আর্জেন্টিনা দলে পরিবর্তনের কথা শোনা যাচ্ছে বেশ। আসল পরিবর্তন হবে খেলোয়াড়দের মনোজগতে। প্রথম ম্যাচে টলে যাওয়া আত্মবিশ্বাস মেরামত করা হয়েছে। যেভাবে শিরোপার স্বপ্ন নিয়ে এসেছিল, এখনো সেটাই আছে। পাশাপাশি তাদের সামর্থ্যেও কোনো ঘাটতি নেই। লড়াকু মনোভাব আর বিশ্বাস ফেরত পেলেই আর্জেন্টিনার খেলায় আবার ফিরবে শিরোপার রং। এখানেই লিওনেল মেসি হতে পারেন অনুপ্রেরণার প্রতীক এবং ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দেওয়ার কারিগর।

অন্যদের পরিশ্রমের সঙ্গে সাতবারের ব্যালন ডি’অরজয়ীর বুদ্ধিদীপ্ত টাচ যোগ হলে আলবেসেলেস্তেদের চেহারা বদলে যাবে।  সেটা বদলাতেই হবে। দেশ ও নিজেদের কথা ভেবে স্কালোনিও বলছেন ভাগ্যবদলের কথা, ‘এটা ফুটবল। একটা দেশের হয়ে আমরা খেলছি এবং সবাই তাকিয়ে আছে আমাদের দিকে। তাই শেষ মিনিট পর্যন্ত লড়াই করতে হবে আমাদের, পরিপার্শ্ব বদলাতে হবে। দেখাতে হবে আমরাও পারি।’

এক বছর আগে মেসির দল মারাকানায় সেই সক্ষমতার প্রমাণ দিয়েছিল কোপা আমেরিকা জিতে আর্জেন্টিনার ২৮ বছরের শিরোপা খরা দূর করে। এরপর টানা ৩৬ ম্যাচ অপরাজিত থেকে ধাক্কা খেয়েছে বিশ্বকাপে। তাই বলে বিশ্বকাপ শেষ হয়ে যাবে!