৪৯১ মিনিট আগের আপডেট; দিন ৯:২৯; রবিবার ; ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

ধুলার অ্যালার্জিতে বিরক্ত? প্রতিত্রাণের ৭ উপায়

অনলাইন ডেস্ক ১৬ জুলাই ২০২১, ২১:৪৬

আমাদের কাছে অতিপরিচিত একটি সমস্যা হচ্ছে অ্যালার্জি।  ধুলোবালি থেকেও অনেকে অ্যালার্জিতে ভোগেন। এই সমস্যায় ভোগেন এমন অনেকেই আছেন, যারা জানেন না কীভাবে করতে হবে মোকাবিলা। কিন্তু সহজ কিছু উপায়ে আপনিও পেতে পারেন এ সমস্যা থেকে মুক্তির স্থায়ী সমাধান।

অ্যালার্জির সমস্যার মূল কারণ হিসেবে কাজ করে বিভিন্ন ধরনের মাইট বা মাকড়। আবার বাসার ধুলার মধ্যে থাকা মাইট পোকার মলের কারণেও মানুষের অ্যালার্জি হয়ে থাকে৷আমাদের বাসায় থাকা ধুলার মধ্যে এই মাকড়গুলো লুকিয়ে থাকে। তাতে খালি চোখে তাদের দেখা যায় না। আর ধুলায় থাকার পাশাপাশি অদৃশ্য এই মাকড়টি আমাদের বিছানাতেও থাকে অনেক বেশি।

অ্যালার্জির কারণে অনেকের হাঁচি-কাশি, কারও ক্ষেত্রে চোখ দিয়ে পানি পড়ার মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে। এ ছাড়া অনেকের শ্বাসকষ্টের মতো সমস্যাও দেখা দেয়। এমন সমস্যার শিকার হলে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত। তবে ঘরোয়াভাবেও মিলতে পারে এ সমস্যার সমাধান। 

জানুন কীভাবে ঘরোয়াভাবে পাবেন ধুলার অ্যালার্জি থেকে মুক্তি—

১. বিছানা পরিষ্কার রাখা

অ্যালার্জির কারণে মাঝে মাঝে অনেকের নাক বন্ধ হয়ে থাকে অথবা ঠাণ্ডা লেগে থাকে। আবার এ সমস্যায় অনেকের ওষুধ খেয়েও লাভ হয় না খুব একটা। তবে এ থেকে অনেকটাই মুক্তি পেতে পারেন আপনার বিছানাকে পরিষ্কার রেখে। বিছানায় নানান মাকড়, ধুলোবালি, ছারপোকা ইত্যাদি থাকে, যা সাধারণ চোখে দেখা যায় না। আর অ্যালার্জি হওয়ার পেছনে এরাই দায়ী। তাই এগুলো থেকে মুক্তি পেতে বিছানা রাখতে হবে পরিষ্কার।

২. ঘরের পর্দা পরিষ্কার রাখা

অ্যালার্জি থেকে মুক্ত থাকতে হলে নিয়মিত ঘরের দরজা, জানালার পর্দা পরিষ্কার রাখতে হবে। এ ছাড়া পর্দার কাপড় এমন নির্বাচন করতে হবে যাতে ধুলাবালি আটকাবে কম।

৩.কাপড়ের খেলনা ঘরে না রাখা
আমরা অনেকেই কাপড়ের টেডি বা খেলনা রাখি ঘরে। আর এ ধরনের খেলনাগুলোতে ধুলা জমে অনেক বেশি। এ সমস্যা সমাধান করতে পারেন খুব সহজেই। মাঝে মাঝে আপনার প্রিয় কাপড়ের টেডি বা খেলনাকে ডিপফ্রিজে রেখে দিন কিছুক্ষণ। এতে করে এর মাঝে থাকা মাকড় বা ছারপোকাগুলো মরে যাবে।

৪. সোফা পরিষ্কার রাখা
বেশিরভাগ সোফার কাপড়েই অনেক বেশি পরিমাণে ধুলা আটকে থাকে৷ তাই অ্যালার্জি সমস্যা থেকে দূরে থাকতে সোফার কাপড় পরিষ্কার করতে হবে নিয়মিত। আর সম্ভব হলে কাপড়ের পরিবর্তে চামড়ার তৈরি সোফাসেট বাছাই করুন। কারণ এতে ধুলা জমে কম।

৫. চাদর, বালিশ, লেপ, কম্বল নিয়মিত পরিষ্কার করা
অ্যালার্জির সমস্যা থেকে রেহাই পেতে নিয়মিত ঘরের বিছানা, চাদর, বালিশ, লেপ, কম্বল ইত্যাদি পরিষ্কার করতে হবে। মাঝে মাঝে সেগুলোকে রোদে রাখতে পারেন। এতে মাকড় ও ছারপোকা অনেকটাই দূর হবে।

. কার্পেট বা পাপস পরিষ্কার করা
ঘরে কার্পেট বা পাপস রাখা থাকলে সেগুলোতে অনেক পরিমাণে ধুলা জমে। এটি অন্যতম কারণ হতে পারে আপনার অ্যালার্জি হওয়ার। তাই এর সমাধানে কিছু দিন পর পর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। আর আমাদের দেশে গরমের সময়ে ঘরে কার্পেট না রাখাই ভালো।

৭. বাইরের ধুলাবালি
আমাদের সবাইকে নিয়মিত বাইরে যেতেই হয়। আর বাইরে বের হওয়া মানেই বাইরের ধুলাবালি শরীরে বহন করা। তাই বাইরে থেকে ঘরে এসে প্রথমেই বাইরের জামা পরিবর্তন করুন এবং গোসল সেরে ফেলুন। এতে আপনার চুল, নাক, মুখ, চোখ, হাতে লেগে যাওয়া বাইরের ধুলাবালি আপনার অ্যালার্জি হওয়ার কারণ হতে পারবে না।

তথ্যসূত্র: ডিডাবলু ডটকম


সর্বমোট পাঠক সংখ্যা : ১২১