৩৮৫৪ মিনিট আগের আপডেট; দিন ৯:৫০; রবিবার ; ১৩ মে ২০২১

‘অনুভূতির অভিধান’ দ্বিতীয় খণ্ড লিখছেন তাহসান

অনলাইন ডেস্ক ২৮ এপ্রিল ২০২১, ১৫:২০

গান দিয়ে ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন। এরপর অভিনয়, মডেলিং, শিক্ষকতা যেটাই করেছেন সেখানেই পেয়েছেন ঈর্ষণীয় সাফল্য। এবার লেখক হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেও মুগ্ধতা ছড়িয়েছেন তাহসান রহমান খান।

গত বইমেলায় অধ্যয়ন প্রকাশনী থেকে প্রকাশিত হয় নানা গুণের অধিকারী এই শিল্পীর লেখা প্রথম বই ‘অনুভূতির অভিধান’। ২০টি ইমোশনের কথা, কবিতা ও বাস্তবতা বইটিতে লেখেন তাহসান। তার সেটা তার ভক্তরা এতই পছন্দ করেছেন যে এ নিয়ে রীতিমতো হইচই বেঁধে যায়। করোনার কারণে লেখক তাহসান নিজেই যেতে পারেননি মেলায়। লকডাউন আর সময়সূচি কারণে ভক্তরাও মেলায় যেতে পেরেছেন কম। কিন্তু অনলাইনেই নিজেদের প্রিয় গায়কের বই কিনে নেন তারা। বইটি যে তাহসানিয়ানদের খুব পছন্দ হয়েছিল সেটা তা সামাজিক মাধ্যমের রিভিউতেই স্পষ্ট ছিল।

বইটি নিয়ে সুভাশীষ ভৌমিক নামে একজন লিখেন, ‘বইটিতে আমার কাছে সবচেয়ে ইনোভেটিভ যে জিনিসটা লেগেছে সেটা হচ্ছে প্রতিটি গল্পের সাথে একটা অনুভুতিকে ফুটিয়ে তোলা এবং গল্প শেষে প্রতিটি অনুভূতির একটি চিত্রকর্ম এবং কবিতার মাধ্যমে তার বহিঃপ্রকাশ করা। সত্যিই অসাধারণ এক আইডিয়া।’

লেখক তাহসান এবার দিলেন আরেক সুখবর! ‘অনুভূতির অভিধান’-এর রেশ কাটতে কাটতেই বইটির দ্বিতীয় খণ্ড লিখছেন তিনি। করোনার কারণে টানা ২০-২৫ দিন ধরে বাসায় অবস্থান করছেন তাহসান। এই সময়টাকেই নতুন বই লেখার মোক্ষম সময় হিসেবে বেচে নিয়েছেন। পাশাপাশি নানা বিষয়ে পড়াশোনা এবং আঁকাআঁকিও করছেন তিনি।

ঢাকা পোস্টকে তাহসান বলেন, ‘আগের বইটির রেসপন্স খুবই ভালো। যারা আমার ভক্ত তাদের খুবই ভালো লেগেছে। যারা আমার কাজের সাথে অতটা পরিচিতি না সাহিত্যপ্রেমী তাদেরও ভালো লেগেছে। আমার জীবনে আরও অনেক গল্প আছে যেগুলো প্রথম বইতে লেখা র জায়গা হয়নি। এছাড়া আমার জানার প্রয়োজন ছিল আমার লেখার ধরনটা মানুষের কেমন লাগছে। সব কিছু মিলিয়ে এখন আরও গুছিয়ে নতুন বইটি লিখতে পারব।’

তাহসান আরও জানান, লকডাউনের কারণে আপতত ঘরবন্দিই আছেন তাহসান। এই সময়টায় নামাজ-রোজার পাশাপাশি লেখালেখি, পড়াশোনার আর বিশ্রাম করে কাটাচ্ছেন তিনি।


সর্বমোট পাঠক সংখ্যা : ৫১